গোয়াইনঘাটে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি


জুন ২৯, ২০২০
০৮:৩৪ অপরাহ্ন


আপডেট : জুন ২৯, ২০২০
০৮:৩৪ অপরাহ্ন



গোয়াইনঘাটে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

সিলেটের গোয়াইনঘাটে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারী বর্ষণে সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। গতকাল রবিবার (২৮ জুন) দিবাগত রাত থেকে বানের পানি কিছুটা কমতে শুরু করেছে। 

অপরদিকে সরকারি ৩৫ টন জিআর এর চাল বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। পাশাপাশি ৮৪ হাজার নগদ টাকার শুকনো খাবার ও ২৮ হাজার টাকার শিশুখাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

গত এক সপ্তাহ ধরে টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে গোয়াইনঘাট উপজেলার সবক'টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়। গত মঙ্গলবার (২৩ জুন) থেকে টানা ভারী বর্ষণ হওয়ায় ঢলের পানি বেড়ে গোয়াইনঘাট উপজেলা সদরের সঙ্গে সড়ক যোগাযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। ফলে পানিবন্দি হয়ে পড়েন গোয়াইনঘাটের তিন লক্ষাধিক মানুষ।

বন্যা পরিস্থিতির খবর পেয়ে গোয়াইনঘাটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করে ৩৫ টন জিআর এর চাল বরাদ্দ করেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপি। তাছাড়া ৩৮০ প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ করা হয়েছে।

জানা গেছে, এখন পর্যন্ত জাফলংয়ের পিয়াইন নদ ও ডাউকি নদী এবং জৈন্তাপুরের সারী নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও সদস্যসহ সরকারি ট্যাগ অফিসারগণ ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছেন।

ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমসহ উপজেলার বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করেছেন গোয়াইনঘাট উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুস সাকিব। গোয়াইনঘাট উপজেলার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ এবং ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম মনিটরিং করতে মাঠে তৎপর রয়েছেন তিনি।

এ ব্যাপারে গোয়াইনঘাটের ইউএনও মো. নাজমুস সাকিব জানান, বন্যার পানি কিছুটা কমতে শুরু করেছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মাঝে সরকারি ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

 

এমএম/আরআর-১২