ব্রোকলি চাষে সাফল্য

সৈয়দ হাবিবুর রহমান ডিউক, বাহুবল থেকে ফিরে


ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২১
০৫:৪৫ অপরাহ্ন


আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২১
০৫:৪৫ অপরাহ্ন



ব্রোকলি চাষে সাফল্য

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার হাফিজপুরে প্রথমবারের মতো ব্রোকলি চাষে সফল হয়েছেন কৃষক আব্দুস সালাম। তিনি বাহুবল উপজেলার হাফিজপুরের আব্দুল গফুরের ছেলে। প্রথমবারের মতো তিনি তার ২০ শতক জমিতে লাগিয়েছেন ব্রোকলি।

কৃষক আব্দুস সালাম জানান, তিনি ২ টাকা পিস হিসেবে ২ হাজার ১০০ পিস ব্রোকলির চারা চুনারুঘাটের দুর্গাপুর থেকে এনে জমিতে লাগিয়েছিলেন। সর্বসাকুল্যে তার ১৫-২০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। বর্তমানে প্রতিটি ব্রোকলি এক থেকে দেড় কেজি ওজনের হয়েছে। এবার তিনি বিক্রি সেগুলো করছেন। বাজারে ব্রোকলি ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

তিনি জানান, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে তার ব্রোকলি ৫৫-৬০ হাজার টাকায় বিক্রি হবে। এতে করে ২০ শতক জায়গায় ব্রোকলি চাষে তার লাভ হবে প্রায় ৪০ হাজার টাকা।

আব্দুস সালাম জানান, স্থানীয় কৃষি অফিস থেকে বেশ সহযোগিতা পেয়েছেন তিনি। কৃষি অফিস থেকে সার, কীটনাশক দেওয়া হয়েছে। তবে ক্রেতাদের পূর্ণ স্বাদ দিতে তিনি কোনো কীটনাশক ব্যবহার করেননি। তিনি কৃষি অফিসের দেওয়া এক ধরনের পাউডার বেশ কিছু বড় বোতলে পানিতে মিশিয়ে জমিতে রেখে দিতেন। পোকাগুলো ওই পানিতে পড়ে মারা যেত।

তিনি আরও জানান, ব্রোকলির একটা গাছে তিনবার ফল ধরে। কাটার পর আবার অন্য অংশে ফল আসে। তিনি আশাবাদী, আগামীতে আরও বেশি করে এই ফসল চাষ করবেন। ব্রোকলির স্বাদ অনেকটা ফুলকপির মতো খেতে, তাই বাজারে এর যথেষ্ট কদর রয়েছে।

কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, ব্রোকলি চাষ করলে বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হবেন এ অঞ্চলের কৃষকরা। আর বাণিজ্যিকভাবে চাষে কৃষকদের আগ্রহ থাকায় আগামী কয়েকবছরের মধ্যে ব্রোকলি চাষ ও উৎপাদন কয়েকগুন বাড়বে বলে প্রত্যাশা করছেন কৃষি কর্মকর্তারা। তারা জানান, ব্রোকলি শরীরের জন্য বেশ উপকারী সবজি। ব্রোকলি রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে আনে। পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ ব্রোকলি সুস্থ স্নায়ুতন্ত্রের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতে ক্যালসিয়ামের আধিক্য থাকায় হাড়ের জন্য এটি বেশ উপকারী।

এ ব্যাপারে বাহুবল উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল আউয়াল বলেন, 'ব্রোকলি আগে বাণিজ্যিকভাবে চাষ হতো না। এখন কিছুটা হচ্ছে। আমাদের একটি প্রকল্প ছিল, নাম নিরাপদ ফসল উৎপাদন প্রকল্প। ওই প্রকল্পের আওতায় ছিল ব্রোকলি।'

তিনি জানান, হাফিজপুরের কৃষক আব্দুস সালামকে বীজ, সার, কীটনাশক যা যা লাগে সবকিছু দেওয়া হয়েছে, তাই তিনি সফল হয়েছেন। এই ফসলটি মূলত অক্টোবর মাসে লাগাতে হয়। তিন মাসের মধ্যেই ফসল আসে। তবে একমাসের কিছু কম বয়সী চারা লাগালে বেশ ভালো ফলন হয়। এই সবজিটি যেহেতু নতুন, তাই সবাইকে এর ক্রেতা বাড়াতে হবে। ব্রোকলি অত্যন্ত সুস্বাদু একটি সবজি, যা শরীরের অনেক রোগ প্রতিরোধ করে। তাই যে কেউ এ ফসল চাষে আগ্রহ দেখালে কৃষি অফিস তাদের সঙ্গে থাকবে।

 

এসডি/আরআর-০১