সিলেটের বাজারে আলু সংকট, দাম চড়া

নিজস্ব প্রতিবেদক


অক্টোবর ৩০, ২০২০
০১:২৩ পূর্বাহ্ন


আপডেট : অক্টোবর ৩০, ২০২০
০১:২৩ পূর্বাহ্ন



সিলেটের বাজারে আলু সংকট, দাম চড়া
বিপাকে ক্রেতারা

হিমাগার থেকে বেশি দামে কিনে সরকারি মূল্যে আলু বিক্রয় করলে লোকসানে পড়তে হবে বলে দেশের অন্য স্থান থেকে আলু ক্রয় করা বন্ধ রেখেছেন কালীঘাটের পাইকারি ব্যবসায়ীরা। ফলে পাইকারি বাজারে আলু সংকট দেখা দিয়েছে। এর প্রভাব পড়েছে খুচরা বাজারেও। সংকটের পাশাপাশি দাম বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা।

জানা যায়, সরকারের কৃষি স¤প্রসারণ অধিদপ্তর হিমাগার পর্যায়ে প্রতি কেজি আলুর দাম ২৩ টাকা, পাইকারি পর্যায়ে ২৫ টাকা এবং খুচরা পর্যায়ে ৩০ টাকা নির্ধারণ করে দেয়। পরবর্তীতে খুচরা পর্যায়ে ৩০ এর জায়গায় ৩৫ টাকা, হিমাগারে ২৩ এর জায়গায় ২৭ এবং পাইকারিতে ২৫ এর জায়গায় ৩০ টাকা করে আলুর নতুন দাম নির্ধারণ করে সরকার। তবে পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছেন হিমাগার থেকে সরকার নির্ধারিত দামে তারা আলু ক্রয় করতে পারছেন না। ফলে তারা আলু ক্রয় বন্ধ রেখেছেন।

নগরের কালীঘাট এলাকার পাইকারি বাজারে গিয়ে দেখা যায়, আড়তগুলোতে আলু নেই। কিছু আড়তে আলু থাকলেও বিক্রি করতে চাইছেন না। 

কালীঘাটের ফাহিম হোসেন ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী জুবেল হোসেন সিলেট মিররকে বলেন, ‘আমরা রাজশাহী ও মুন্সিগঞ্জ থেকে আলু আনি। সরকার নির্ধারিত দাম দিয়ে স্টোরেজগুলো থেকে আলু ক্রয় করা যায় না। আলু কিনতে হয় আরও বেশি দামে। বেশি দামে ক্রয় করে বাজারে এনে তা আবার সরকারি দামে বিক্রয় করা সম্ভব নয়। তাই আমরা এখন আর আলু ক্রয় করছি না। ফলে বাজারে আলুর সংকট দেখা দিয়েছে। স্টোরেজগুলো থেকে নির্ধারিত দামে ক্রয় করতে পারলে পাইকারিতেও সরকার নির্ধারিত দামে বিক্রি করা যাবে।’ 

একই কথা বলেন মেসার্স নূর উদ্দিন অ্যান্ড ব্রাদার্সের বিক্রেতা শাহিন মিয়াও। তিনি বলেন, ‘বেশি দামে আলু ক্রয় করে সরকার নির্ধারিত মূল্যে বিক্রি করতে হলে লোকসান ছাড়া উপায় থাকবে না। তাই আমরা এখন আলু কিনছি না।’

এদিকে, নগরের খুচরা বাজারগুলোতে আলু বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। অনেক খুচরা বিক্রেতা ও মুদির দোকানে আলু নেই। যেসব স্থানে আছে সেখানে ৪৫ থেকে ৫০ টাকা দরে আলু বিক্রি হচ্ছে। উপেক্ষিত থাকছে সরকারের নির্দেশনা। আম্বরখানা এলাকার খুচরা ব্যবসায়ী মো. খুরশেদ আলম বলেন, ‘বেশি দামে আলু কিনতে হচ্ছে। তাই বিক্রিও করতে হচ্ছে বেশি দামে।’ তিনি জানান, পাইকারি বাজারে ৩৮ থেকে ৪০ টাকা কেজিতে আলু কিনতে হচ্ছে। তাই খুচরা বাজারে সরকারি দামে আলু বিক্রি করা সম্ভব হচ্ছে না। 

খুচরা বাজারে আলুর দাম চড়া হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন নগরবাসী। বিশেষ করে নগরের মধ্যবিত্ত, নি¤œ মধ্যবিত্ত ও শ্রমজীবী মানুষজন রয়েছেন অস্বস্তিতে। মঙ্গলবার বিকেলে বন্দরবাজার এলাকায় বাজার করতে আসেন অটোরিকশা চালক ইদ্রিস আলী। তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, ‘এমনিতেই এখন আয় কম। অন্যদিকে নিত্যপ্রয়োজনীয় সকল দ্রব্যের দাম অতিরিক্ত। আগে আলুর দাম ছিল ২০ থেকে ২৫ টাকা। এক কেজি নিলে দুইবেলা দুই মুঠো খেতে পারতাম। কিন্তু এখন তো সেই আলুর দামও ৪০-৪৫ টাকা।’

এ বিষয়ে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সিলেট জেলার সহকারী পরিচালক মো. আমিরুল ইসলাম মাসুদ সিলেট মিররকে বলেন, ‘আড়ৎদাররা আলু বাজারে ছাড়ছেন না। তাই বাজারে আলুর সংকট। তবু অতিরিক্ত মূল্যে কেউ যাতে আলু বিক্রি করতে না পারে সে ব্যাপারে প্রতিদিন আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে।’ 

বিএ-০১