@Framework : Laravel 6 (IT Factory Admin) @Developer : Faysal Younus Daily Sylhet Mirror | পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে চমক দেখালেন জাকির হোসেন পলাশ
পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে চমক দেখালেন জাকির হোসেন পলাশ

চুনারুঘাট সংবাদদাতা


জানুয়ারি ০৭, ২০২২
০৫:০১ অপরাহ্ন


আপডেট : জানুয়ারি ০৭, ২০২২
০৫:০১ অপরাহ্ন



পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনে চমক দেখালেন জাকির হোসেন পলাশ

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ২নং আহম্মদাবাদ ইউপিতে পঞ্চম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চমক দেখালেন জনগণের মনোনীত (ঘোড়া প্রতীক) এর নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন পলাশ।

আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ছাড়াও হেভিওয়েট প্রার্থীদের হারিয়ে বেসরকারিভাবে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর চেয়ে ২৫৪৮ ভোট বেশি পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন তিনি। এবং ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ প্রার্থীর চেয়ে ৩২২৫ ভোট বেশি পেয়েছেন তিনি চুনারুঘাট উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে ২নং আহম্মদাবাদ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী (সবচেয়ে বেশি ৭ জন) ছিলেন। এই ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে ছিলেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা সেচ্ছাসেবক লীগ সাধারণ সম্পাদক আবেদ হাসনাত চৌধুরী (সনজু)।

বর্তমান চেয়ারম্যান হিসেবে তার প্রভাব ছিল সারা ইউনিয়ন জুড়ে। এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত (নৌকা প্রতীক) এর প্রার্থী হিসেবে দেয়া হয়েছিল। এছাড়া তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী (ঢোল প্রতীক) মো. লিটন মিয়া, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (আনারস প্রতীক) সাবেক তিন বারের চেয়ারম্যান হাজ্বী মো. আব্দুল লতিফ, স্বতন্ত্র প্রার্থী (অটোরিকশা প্রতীক) মো, শামছুল আলম, চা-বাগানের (চশমা প্রতীক) যুবরাজ ঝড়া ও (মোটর সাইকেল প্রতীক) মো. বেলায়েত আলী রুপক। শক্তিশালী প্রার্থীরা তার বিরুদ্ধে ভোটের লড়াইয়ে ছিলেন। সবাইকে ছাড়িয়ে ভোট যুদ্ধে শেষ হাসি হেসেছেন জনগণের মনোনীত নব-নির্বাচিত ঘোড়া প্রতীকের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন পলাশ।

ফলাফল দেখলেই বুঝা যায়, লড়াইটা বেশ আনন্দের ছিল তার জন্য। জাকির হোসেন পলাশ (ঘোড়া প্রতীক) ভোট পেয়েছেন ৬৭৬৬ টি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. লিটন মিয়া (ঢোল প্রতীক) পেয়েছেন ৪২১৮ ভোট। আর আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবেদ হাসনাত চৌধুরী সনজু (নৌকা প্রতীক) পেয়েছেন ৩৫৪১ ভোট। এ ব্যাপারে নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন পলাশ বলেন, আমার এই বিজয় আহম্মদাবাদ ইউনিয়নের মানুষের বিজয়। তারা আমাকে সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন। তাদের আস্থা ও বিশ্বাসকে আমি মর্যাদা দেবো। বিশেষ কোনো এলাকার উন্নয়নের চিন্তা না করে আমি আমার ইউনিয়নের সকল এলাকাকে সমান গুরুত্ব দেবো।

জে এ/বি এন-০৫