@Framework : Laravel 6 (IT Factory Admin) @Developer : Faysal Younus Daily Sylhet Mirror | ফ্রিল্যান্সাররা অর্থ আনাতে পারবেন বিকাশে
ফ্রিল্যান্সাররা অর্থ আনাতে পারবেন বিকাশে

সিলেট মিরর ডেস্ক


ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২২
০৯:১২ অপরাহ্ন


আপডেট : ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২২
০৯:১২ অপরাহ্ন



ফ্রিল্যান্সাররা অর্থ আনাতে পারবেন বিকাশে

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল পেমেন্ট প্ল্যাটফর্ম পেওনিয়ারের মাধ্যমে সারা বিশ্ব থেকে ফ্রিল্যান্সারদের পেমেন্ট গ্রহণ করা যাবে বিকাশে।

আজ বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বর্ডারলেস পেমেন্ট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান পেওনিয়ার, বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক ব্র্যাক এবং মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশ যৌথভাবে এই সেবার সূচনা করে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক প্রধান অতিথি হিসেবে বিশেষ এ সেবার উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে বেসিসের সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, পেওনিয়ারের রিজিওনাল সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট রোহিত কুলকার্নি ও চিফ রেভিনিউ অফিসার রবার্ট ক্লার্কসন, ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম আর এফ হোসেন এবং বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীরসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা যুক্ত ছিলেন।

এ সেবার আওতায় বিকাশ অ্যাপের রেমিট্যান্স আইকন থেকে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্টে রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন গ্রাহকরা। যাদের ইতোমধ্যে পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট আছে তারাও নিজেদের বিকাশ অ্যাকাউন্টের সঙ্গে সংযুক্ত করে নিতে পারবেন। অ্যাকাউন্ট সংযুক্ত হয়ে গেলে ফ্রিল্যান্সাররা তাৎক্ষণিক তাদের পেমেন্ট বিকাশ অ্যাকাউন্টে আনতে পারবেন। বিকাশ থেকেই পেওনিয়ার অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স চেক করারও সুযোগ থাকবে।

যেকোনো সময় যেকোনো প্রান্ত থেকে বিকাশে তাৎক্ষণিক পেমেন্ট গ্রহণ করতে পারবেন ফ্রিল্যান্সাররা। বিকাশে আসা টাকা প্রয়োজনমতো ব্যবহারও করতে পারবেন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক বলেন, ‘দক্ষ মানব সম্পদ আমাদের সবচেয়ে বড় শক্তি। যে সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার কাজ করছেন, তারা বিশ্বের অনলাইন আউটসোর্সিংয়ে ১৬ শতাংশ অবদান রাখছেন।

‘অক্সফোর্ড ইন্টারনেট ইনস্টিটিউটের গবেষণায় উঠে এসেছে, অনলাইন আউটসোর্সিংয়ে বাংলাদেশ দ্বিতীয় বৃহত্তম গন্তব্য। গত ১৩ বছরে সরকারের বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ ও নীতিসহায়তায় ২০ লাখ তরুণ-তরুণীর প্রযুক্তিনির্ভর কর্মসংস্থান তৈরি হয়েছে যা আরও সম্প্রসারণের জন্য কাজ করছি আমরা।’

বিশেষ এ সেবা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ফ্রিল্যান্সারদের স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক ও এনবিআরের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের কিছু সুবিধা দেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৫৫টি অনলাইন মার্কেট প্লেসকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। একজন ফ্রিল্যান্সার এসব মার্কেট প্লেস থেকে সেবা রপ্তানির বিপরীতে ৪ শতাংশ প্রণোদনা পাচ্ছেন।’

পেওনিয়ারের চিফ রেভিনিউ অফিসার রবার্ট ক্লার্কসন বলেন, ‘পেওনিয়ারের লক্ষ্য বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তে সব ধরনের ডিজিটাল ব্যবসায়ে প্রবৃদ্ধির অংশ হওয়া। বিকাশ ও ব্র্যাক ব্যাংকের মতো শীর্ষ দুটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে অংশীদার হয়ে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির সঙ্গী হতে পেরে আমরা আনন্দিত।’

ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম আর এফ হোসেন বলেন, ‘ফ্রিল্যান্সারদের বৈদেশিক আয় সরাসরি ও তাৎক্ষণিকভাবে বিকাশ অ্যাকাউন্টে নিয়ে আসার এ উদ্যোগ ফ্রিল্যান্সারদের পেমেন্ট গ্রহণ করার পথ সহজ ও স্বাচ্ছন্দ্যময় করবে। পাশাপাশি দেশে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রবাহকে আরও বৃদ্ধি করবে।’

বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল কাদীর বলেন, ‘বাংলাদেশের যে ডিজিটাল অবকাঠামো তৈরি হয়েছে তার সর্বোচ্চ সুবিধা নিয়ে বিশ্ববাজারে দেশের ফ্রিল্যান্সিংকে আরও শক্তিশালী অবস্থানে পৌঁছে দেয়ার সুযোগ রয়েছে। রেগুলেটেড পদ্ধতিতে ক্লায়েন্টদের কাছ থেকে সহজে পেমেন্ট পাওয়ার এই পদ্ধতি ফ্রিল্যান্সারদের দীর্ঘদিনের পেমেন্টসংক্রান্ত জটিলতা দূর করবে।’

পেওনিয়ার হলো একটি আন্তর্জাতিক ওপেন ব্যাংক। যেকোনো দেশ থেকে এই ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট খুলে লেনদেন করা যায়। ২০০টিরও বেশি দেশ থেকে এতে পেমেন্ট গ্রহণ করা যায়।

অনুষ্ঠানে বলা হয়, নতুন এই সেবার আওতায় ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন বিকাশে সর্বোচ্চ পেমেন্ট গ্রহণকারী ফ্রিল্যান্সারকে ১টি করে মোবাইল ফোন পুরস্কার দেয়া হবে। ক্যাম্পেইন চলাকালীন একজন গ্রাহক একবারই এ পুরস্কার পাবেন। পেওনিয়ার অ্যাকাউন্ট থেকে এক বা একাধিক ট্রানজেকশনে বিকাশ অ্যাকাউন্টে আসা অর্থের পরিমাণ দিনে ১৫ হাজার টাকার বেশি হতে হবে। ক্যাম্পেইন শেষে বিজয়ীদের কাছে পুরস্কারের মোবাইল ফোন তুলে দেয়া হবে।

নতুন এই সেবা চালু হওয়ায় প্রতিবার পেওনিয়ার থেকে বিকাশে ট্রানজেকশনের জন্য ২ শতাংশ ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাকও দিচ্ছে বিকাশ। আজ থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত এই সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন ফ্রিল্যান্সাররা।

এএফ/০৪