শায়েস্তাগঞ্জে রাস্তা নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

শায়েস্তাগঞ্জ প্রতিনিধি


জুন ২৯, ২০২০
০৭:৪০ অপরাহ্ন


আপডেট : জুন ২৯, ২০২০
০৮:২১ অপরাহ্ন



শায়েস্তাগঞ্জে রাস্তা নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নে একটি রাস্তা নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, গত অর্থবছরে এডিবি'র অর্থায়নে নুরপুর ইউনিয়নের সুরাবই গ্রামের মামুন মিয়ার বাড়ির রাস্তা ইট সলিংয়ের জন্য ১ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। বিগত ১২ মার্চ নুরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মুখলিছ মিয়া সাময়িক বরখাস্ত হওয়ার পর নতুন কমিটির মাধ্যমে কাজ শুরু করা হয়।

এ বিষয়ে তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, ৪ মাস পূর্বে চেয়ারম্যান যে রাস্তার জন্য বরাদ্দ দিয়েছিলেন, নতুন কমিটির সভাপতি ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের নারী মেম্বার রাবেয়া আক্তার সুরাবই গ্রামের আরেক মামুন মিয়ার বাড়ির যে রাস্তায় ইটের সলিং বিদ্যমান ছিল সেই রাস্তার জন্য নতুন করে ইঞ্জিনিয়ারের কাছ থেকে কাজের হিসাব এনে নতুন-পুরাতন ইট লাগিয়ে পুরাতন ইটগুলো সরিয়ে ফেলেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, চেয়ারম্যান মুখলিছ যে মামুন মিয়ার বাড়ির মাটির রাস্তা সলিং করার জন্য বরাদ্দ দিয়েছিলেন, নারী মেম্বার সেটা না করে অন্য ইটের রাস্তা আবার নতুন করে মেরামত করে কাজ শেষ করে ফেলেছেন। কিন্তু এডিবি মূলত মাটির রাস্তায় ইট সলিংয়ের জন্য বরাদ্দ দিয়ে থাকে। কোনো সলিং রাস্তা সংস্কার করার জন্য নতুন বরাদ্দ দেওয়া হয় না। রাবেয়া আক্তার এক্ষেত্রে অনিয়মের আশ্রয় নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নুরপুর ইউনিয়নের নারী মেম্বার রাবেয়া আক্তারের সঙ্গে কথা বললে তিনি বলেন, আমার উপরে আনিত অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই। আমার কাছে সব প্রমাণ আছে। আমি এ রাস্তায় কোনো অনিয়ম করিনি। আমার প্রতিপক্ষ কেউ আমাকে ফাঁসানোর জন্য এমন অভিযোগ করছে।

আর নুরপুর ইউনিয়নের সদ্য বরখাস্ত হওয়া চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া বলেন, আমি যে মামুন মিয়ার বাড়ির রাস্তা দিয়েছিলাম, সেটা ছিল মাটির রাস্তা। কিন্তু কমিটির সভাপতি কেন রাস্তা পরিবর্তন করে ইটের রাস্তায় আবার নতুন করে কাজ করালেন সেটা আমার বোধগম্য নয়।

এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার প্রকৌশলী আবুল বাশার বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছু জানি না। কেউ লিখিত কোনো অভিযোগ করলে আমরা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেব।

এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সুমী আক্তার বলেন, আমি আজ (সোমবার) রাস্তাটি পরিদর্শন করে এসেছি। কিন্তু এলাকার কেউ আমাকে এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ করেনি। কেউ যদি লিখিত কোনো অভিযোগ করে, তাহলে আমি অবশ্যই এ বিষয়টি খতিয়ে দেখব।

 

এসডি/আরআর-০৯