শায়েস্তাগঞ্জে বাল্যবিয়ে বন্ধ করল প্রশাসন

শায়েস্তাগঞ্জ, প্রতিনিধি


অক্টোবর ২৯, ২০২০
০৫:২৭ অপরাহ্ন


আপডেট : অক্টোবর ২৯, ২০২০
০৬:৫২ অপরাহ্ন



শায়েস্তাগঞ্জে বাল্যবিয়ে বন্ধ করল প্রশাসন

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীর বিয়ে বন্ধ করেছে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন। আজ বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) সকাল ১১টায় উপজেলার নছরতপুর গ্রামে স্কুলছাত্রীর বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ অনুযায়ী বিয়ে বন্ধ করে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিনহাজুল ইসলাম। মেয়েটি স্থানীয় নূরপুর আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী বলে জানা গেছে। 

জানা যায়, উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নের নছরতপুর গ্রামের আব্দুল হাই এর পুত্র খোকন মিয়ার সঙ্গে একই গ্রামের মো. সফিক মিয়ার স্কুলপড়ুয়া মেয়ের বিয়ের দিন ধার্য্য ছিল আজ বৃহস্পতিবার। মেয়ের বিয়ের সকল আয়োজন শেষ করেছিলেন সফিক মিয়া। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাল্যবিবাহের সংবাদ জানতে পারে শায়েস্তাগঞ্জ থানার পুলিশ। তারা বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করে। পরে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেন। এ সময় মেয়ের বাবা সফিক মিয়া মুচলেকা দিয়ে জেল-জরিমানা থেকে রক্ষা পেলেও মেয়ে প্রাপ্ত বয়স না পর্যন্ত তাকে বিয়ে দেবেন না মর্মে অঙ্গীকার করেন।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, শায়েস্তাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অজয় চন্দ্র দেন ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. সাদ্দাম হোসেনসহ শায়েস্তাগঞ্জ থানা পুলিশের একটি টিম।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মিনহাজুল ইসলাম বলেন, 'ছেলেদের ক্ষেত্রে ২১ বছর ও মেয়েদের ক্ষেত্রে ১৮ বছর না হলে বিয়ে দেওয়া আইনগত অপরাধ। অপ্রাপ্ত বয়সের একটি মেয়ের বিয়ের খবর পেয়ে আমরা আইন অনুযায়ী সেটি বন্ধ করেছি।'

 

এসডি/আরআর-০৬