ধর্মপাশায় আগুনে পুড়ল কৃষকের ঘর

ধর্মপাশা প্রতিনিধি


জুলাই ২৯, ২০২১
১০:৪৫ অপরাহ্ন


আপডেট : জুলাই ২৯, ২০২১
১০:৪৫ অপরাহ্ন



ধর্মপাশায় আগুনে পুড়ল কৃষকের ঘর

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার মধ্যনগর থানাধীন চামরদানী ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামে অপু তালুকদার (৩৫) নামের এক কৃষকের বসতঘরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বুধবার (২৮ জুলাই) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

ওই কৃষকের বসতঘরের ভেতরে থাকা ৩০ মণ ধান, ২ মণ চাল ও আসবাবপত্রসহ দুই লক্ষাধিক টাকার মালামাল আগুনে পুড়ে গেছে বলে জানা গেছে। বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এই আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যরা।

এলাকাবাসী ও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার চামরদানী ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের বাসিন্দা অপু তালুকদার পেশায় একজন কৃষক। সপ্তাহখানেক আগে কাজের সন্ধানে তিনি চট্টগ্রামে চলে যান। তার স্ত্রী দুই সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে ৪/৫ দিন আগে নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামে নিজের বাবার বাড়িতে বেড়াতে যান। ফলে বসতঘরের ভেতরে কেউ ছিল না।

বুধবার রাত আড়াইটার দিকে ওই বসতঘরটিতে দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে ওঠে। আগুন লাগার বিষয়টি টের পেয়ে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে আগুন নেভাতে সক্ষম হন। তবে আগুনে নেভানোর আগেই বসতঘরটিতে থাকা সবকিছু পুড়ে যায়। 

ক্ষতিগ্রস্ত অপু তালুকদারের ছোটভাই তপু তালুকদার (২৯) বলেন, আগুনে আমার দাদার বসতঘরসহ ঘরের ভেতরে থাকা সব মালামাল পুড়ে শেষ হয়ে গেছে। আগুনে সব মিলিয়ে দুই লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। সরকার থেকে আজ দুই বান্ডিল ঢেউটিন, ছয় হাজার টাকা ও খাদ্যসামগ্রী সাহায্য দেওয়া হয়েছে।  এছাড়া চামরদানী ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে পাঁচ হাজার টাকা আর্থিক সাহায্য পেয়েছি।

চামরদানী ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ওয়াসিল আহমেদ বলেন, আগুনে ওই দরিদ্র কৃষকের বসতঘরের সবকিছু পুড়ে গেছে। আমি প্রয়োজনীয় সহায়তা দেওয়ার ব্যাপারে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ইউএনও স্যারকে মুঠোফোনে জানিয়েছিলাম। পরে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আজ বেলা ২টার দিকে ক্ষতিগ্রস্ত অপু তালুকদারের ছোটভাই তপু তালুকদারের কাছে দুই বান্ডিল ঢেউটিন, নগদ ছয় হাজার টাকা, কিছু খাদ্যসামগ্রী ও আমাদের পরিষদের পক্ষ থেকে পাঁচ হাজার টাকা সহায়তা তুলে দিয়েছি। এ সময় সেখানে আমি ছাড়াও ইউপি সদস্য দুলাল মিয়া, বকুল মিয়া, খোদেজা বেগম, আলেহা বেগম, আবুল কালাম ও ইউপি সচিব আশরাফুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। ইউএনও স্যার তাৎক্ষণিকভাবে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই সহায়তা প্রদান করায় চারমদানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে আমি স্যারের কাছে চিরকৃতজ্ঞ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মুনতাসির হাসান বলেন, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ওই পরিবারটিকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুই বান্ডিল ঢেউটিন, ছয় হাজার টাকা এবং কিছু খাদ্যসামগ্রী  দেওয়া হয়েছে।


এসএ/আরআর-০৯