@Framework : Laravel 6 (IT Factory Admin) @Developer : Faysal Younus Daily Sylhet Mirror | স্বাক্ষ্য দিলেন গুরুত্বপূর্ণ সেই তিন সাক্ষী
স্বাক্ষ্য দিলেন গুরুত্বপূর্ণ সেই তিন সাক্ষী

নিজস্ব প্রতিবেদক


জানুয়ারি ১৯, ২০২২
১১:৩৩ অপরাহ্ন


আপডেট : জানুয়ারি ১৯, ২০২২
১১:৩৩ অপরাহ্ন



স্বাক্ষ্য দিলেন গুরুত্বপূর্ণ সেই তিন সাক্ষী

সিলেটে বিজ্ঞান লেখক ও ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশ (৩২) হত্যা মামলার তিনজন গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। আজ বুধবার (১৯ জানুয়ারি) সিলেটের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক নুরুল আমীনের আদালতে তারা সাক্ষ্য দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সিআইডির সোহেল রানা, মামলার আইটি ফরেনসিক মাসুদ সিদ্দিকী এবং মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আরমান আলী সাক্ষ্য দিয়েছেন। তবে আরমান আলীর জবানবন্দি শেষ হলেও জেরা বাকি রয়েছে। বিচারক নুরুল আমীন আজ বৃহস্পতিবার জেরা করার তারিখ ধার্য করেছেন। আলোচিত এ মামলায় এখন পর্যন্ত ২৯ সাক্ষীর মধ্যে ২৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে।

বাদীপক্ষের মামলা পরিচালনায় গঠিত আইনজীবী প্যানেলের সদস্য মোহাম্মদ মনির উদ্দিন সিলেট মিররকে বলেন, ‘বুধবার তিনজন গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে। এর মধ্যে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আরমান আলীর জবানবন্ধি শেষ হলেও জেরা বাকি রয়েছে। বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) জেরা অনুষ্ঠিত হবে।’

প্রসঙ্গত, গত ২০১৫ সালের ১২ মে সিলেট নগরের সুবিদবাজারের কলাপাড়া এলাকার নিজ বাসার সামনে খুন হন অনন্ত বিজয় দাশ। বিজ্ঞান নিয়ে লেখালেখির পাশাপাশি তিনি ‘যুক্তি’ নামে বিজ্ঞানবিষয়ক একটি পত্রিকা সম্পাদনা করতেন। এছাড়া বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন অনন্ত।

হত্যাকাÐের দিন রাত অনন্তের বড় ভাই রতেœশ্বর দাশ বাদী হয়ে সিলেট বিমানবন্দর থানায় অজ্ঞাত চারজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। এতে বিজ্ঞান বিষয়ে লেখালেখির কারণে অনন্তকে ‘উগ্র ধর্মান্ধ গোষ্ঠী’ পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে বলে অভিযোগ করা হয়।

মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামিদের মধ্যে কানাইঘাটের আবুল হোসেন (২৫), খালপাড় তালবাড়ির ফয়সাল আহমদ (২৭) ও সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বিরেন্দ্রনগরের (বাগলী) মামুনুর রশীদ (২৫) পলাতক। কানাইঘাটের পূর্ব ফালজুর গ্রামের মান্নান ইয়াইয়া ওরফে মান্নান রাহী ওরফে এ বি মান্নান ইয়াইয়া ওরফে ইবনে মঈন (২৪) কারাগারে মৃত্যুবরণ করেছেন।

এছাড়া সিলেট নগরের রিকাবীবাজার এলাকায় বসবাসকারী সাফিউর রহমান ফারাবী ওরফে ফারাবী সাফিউর রহমান (৩০) ও কানাইঘাটের ফালজুর গ্রামের আবুল খায়ের রশীদ আহমদ (২৫) কারাগারে আছেন। ফারাবী বøগার অভিজিৎ রায় হত্যা মামলারও আসামি।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবীরা জানান, গত ১৯ সালের ৭ মে সিলেটের অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে এই মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। কিন্তু সাক্ষীদের অনুপস্থিতির কারণে বারবার পেছানো হয় সাক্ষ্য গ্রহণ। দীর্ঘদিন সিলেটের অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ চলার পর গেল বছর মামলাটি সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়।

আরসি-২৮