ফেঞ্চুগঞ্জে বন্যার সার্বিক অবস্হা দেখে গেলেন এডিসি শারমিন সুলতানা

ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি


জুলাই ১৫, ২০২০
০২:০৪ পূর্বাহ্ন


আপডেট : জুলাই ১৫, ২০২০
০২:০৪ পূর্বাহ্ন



ফেঞ্চুগঞ্জে বন্যার সার্বিক অবস্হা দেখে গেলেন এডিসি শারমিন সুলতানা

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢল ও ভারীবর্ষনে কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে ফেঞ্চুগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। তার মধ্যে কুশিয়ারা নদীর তীরবর্তী ও হাকালুকি হাওরেরর আশপাশ এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে। বন্যার পানি উপজেলা সদরের নাথ কলোনী, সর্দার কলোনী, বাজার সড়ক ও হাসপাতাল সড়ক ছেয়ে গেছে। তার মধ্যে পানিবন্দী রয়েছেন নাথ কলোনীর কয়েকটি পরিবার।

এসব দেখতে মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) দুপুরে ফেঞ্চুগঞ্জে বন্যা কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি এবং সার্বিক অতিরিক্ত দায়িত্ব) শারমিন সুলতানা ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাখী আহমেদ। 

এ সময় তাঁরা ফেঞ্চুগঞ্জ বাজারের নাথ কলোনী ও ইন্তাজ আলী মার্কেট কলোনীর পানিবন্দি মানুষের খোঁজখবর নেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ফেঞ্চুগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মো. বদরুদ্দোজা, ইউপি সদস্য রজত কুমার দেব ও জুবেদ আহমদ প্রমুখ।

বিকেলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নাথ কলোনীতে পাঁচ পরিবারকে ১৫ কেজি খাদ্যসামগ্রী প্রদান করেন সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী বদরোদ্দোজা ও ইউপি সদস্য রজত দেব।চেয়ারম্যান বদরুদ্ধোজা জানান, আরও পচিঁশ পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী প্রদান করা হবে।

জেসি/বিএ-০৫